ছাত্র রাজনীতিছাত্রদললীড

কথা রেখেছে ছাত্রদল

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০।। ২০.০৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

ছাত্রদলের নেতৃত্ব নির্বাচনে নির্দিষ্ট শিক্ষাবর্ষ বেধে দেয়া, বিবাহিতদের বাদ দেয়াসহ নানা চ্যালঞ্জে নিয়েই ছাত্রদলের কাউন্সিলের নির্দেশনা দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমান।

এই সিদ্ধান্তের বিপরীতে আন্দোলন, বিক্ষোভ, আদালতে রিটসহ নানা প্রতিবন্ধকতার পরও তারেক রহমান তার সিদ্ধান্তে অনঢ় থাকেন।

আরও পড়ুন: দ্রুত আসছে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ‘আংশিক’ কমিটি

দীর্ঘ ২৯ বছর পর ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয় ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল।

কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন ফজলুর রহমান খোকন ও ইকবাল হোসেন শ্যামল।

নির্বাচিত হয়েই ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান ঘোষণা দেন ছাত্রদলের সাংগঠনিক

অভিভাবক তারেক রহমান ছাত্রদলকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখেন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে তারা কাজ করবেন।

২০০৩ সালে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে তৃণমূল প্রতিনিধি সভার মাধ্যমে যেভাবে

সংগনকে সুসংগঠিত করেছিলেন সেভাবেই ছাত্রদলকে তৈরি করা হবে। পাশাপাশি

ছাত্রদল ছাত্রদলের অধিকার আদায়ে সব সময় সোচ্চার থাকবে এবং মানুষের পাশে দাঁড়াবে।

আরও পড়ুন: পাবনা ছাত্রদলের ৯টি ইউনিটে নতুন কমিটি

কাউন্সিলের এক বছর পূর্ণ হয়েছে ছাত্রদলের। এই এক বছরের মধ্যে নানান চড়াই উৎরাই পার করে আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছে ছাত্রদল।

বিগত কয়েকটি কমিটির বিরুদ্ধে যেভাবে পকেট কমিটি, টাকার বিনিময়ে পদ বিক্রি, ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দেয়ার যে অভিযোগ উঠেছিল তা থেকে বেড়িয়ে এসেছে বর্তমান নেতৃত্ব।

দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা ছুটে বেড়াচ্ছেন সারাদেশে, দেশের সঙ্কটকালেও খাদ্যসামগ্রী, চিকিৎসাসামগ্রী নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে মানুষের। তৃণমূল থেকে কমিটি গঠন করে সংগঠনকে তৈরি করা হচ্ছে আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য।

ফলে সংগঠনের তৃণমূলে ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য। দীর্ঘ প্রায় ১৭ বছর পর মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটিগুলো একের পর এক ঘোষণা হচ্ছে।

ছাত্রদলের খোকন-শ্যামল নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় কমিটি ইতোমধ্যে সারা দেশের প্রায় ৫ শতাধিক (থানা, পৌর ও কলেজ) কমিটি প্রকাশ করেছে।

এ ছাড়া ঘোষণার অপেক্ষায় আরও ৩০০ কমিটি। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও পূর্ব ছাত্রদলের অধীনস্থ ৬২টি (ওয়ার্ড) কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে ছোটখাটো অনিয়ম থাকলেও তৃণমূল ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের খুশির অন্ত নেই।

আরও পড়ুন: চট্টগ্রাম ছাত্রদলের ২০টি ইউনিটে নতুন কমিটি

এদিকে দ্রুত সময়ের মধ্যেই আসছে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ‘আংশিক’ কমিটি। পদবঞ্চিত তৃণমূলের নেতাকর্মীদেরকে এবারের আংশিক কমিটিতে মূল্যায়ণ করা হবে। নতুন এই আংশিক কমিটির আকার হতে পারে ৪০ থেকে ৫০ সদস্য বিশিষ্ট।

ছাত্রদল সূত্রে জানা যায়, নতুন কমিটি দায়িত্ব পাওয়ার পর খোকন-শ্যামল কেন্দ্রীয় আংশিক কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির নেতাদের সমন্বয়ে করা হয় ১০টি সাংগঠনিক টিম। প্রতিটি টিমকে পাঠানো হয় দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগের প্রত্যেকটি জেলাতে।

এসব টিম স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা করে তাদের চাওয়া-পাওয়া,

অভিযোগ, অভিমানের কথা শুনে প্রতিবেদন আকারে তা কেন্দ্রের কাছে জমা দেন এবং

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমানের কাছে তা তুলে ধরেন।

এরপরই দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। সকলে যখন ঘরবন্দী তখন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার কাছে নেমে পড়ে।

আরও পড়ুন: মানিকগঞ্জ ছাত্রদলের ৫টি ইউনিটে নতুন কমিটি

বিতরণ করে সুরক্ষা সামগ্রী, খাদ্যসামগ্রী। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের যেকোনো

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের যেকোনো স্বার্থ সংশ্লিষ্ট ইস্যুতেও সোচ্চার হয়েছে ছাত্রদল।

শিক্ষার্থী নির্যাতনের শিকার হলে পালন করেছে কর্মসূচি। দাবি জানিয়েছে বিচারের।

জানতে চাইলে ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, আমরা দায়িত্ব নেয়ার পর ছাত্রদলকে যুগোপযোগী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য নানাভাবে কাজ করছি।

ইতোমধ্যে জেলা-উপজেলায় কর্মীসভা করেছি। করনোর মধ্যেও সারা দেশের প্রায় ৫০০ টি ইউনিট/শাখা কমিটি গঠন করা হয়েছে। যা চলমান প্রক্রিয়া। তাছাড়া করোনাকালে ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অসংখ্য মানুষকে ত্রাণ দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির এক বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে নতুন প্রাথমিক সদস্য সংগ্রহ করা হবে।

আগামী রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) সারা দেশের ৫ জেলায় একসাথে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করা হবে।

আরও পড়ুন: বাগেরহাট ছাত্রদলের ৭টি ইউনিটে নতুন কমিটি

এক প্রশ্নের উত্তরে খোকন বলেন, এই এক বছরে তারা সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারা নানাভাবে হয়রানি ও মিথ্যা মামলা শিকার হয়েছেন।

বিভিন্ন অনুষ্ঠানে তাদেরকে বাধা দেয়া হয়েছে। তবুও আমি ছাত্রদলের সভাপতি হিসেবে ভাগ্যবান এবং গর্বিত যে আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমান।

যিনি আমাদেরকে নিয়মিত দিকনির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন। আজকে তার মতো পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার।

তার বিরুদ্ধে সরকারের আনীত সকল অভিযোগ মিথ্যা। ইনশাআল্লাহ ছাত্রদল অতীতের চেয়ে আরো বেশি সুসংগঠিত হবে।

আগামীদিনে আমাদের অভিভাবক দেশনায়ক তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনাটাই অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ বলে জানান খোকন।

২০১৯ সালের ২০ ডিসেম্বর রাতে ছাত্রদলের ৬০ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন: নওগাঁ ছাত্রদলের ১০টি ইউনিটে নতুন কমিটি

২৪ ডিসেম্বর ২০১৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আংশিক আহ্বায়ক কমিটি এবং ২১ মার্চ

বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ টি হলের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এখনো আংশিক কমিটি দিয়েই চলছে কেন্দ্রীয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল।

অবশ্য ছাত্রদল তৃণমূল পুনর্গঠনে এখন ব্যস্ত সময় পার করছে। সারাদেশে ১০ টি সাংগঠনিক বিভাগের জন্য ১০ টি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে।

এসব টিমের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা ছাত্রদলকে পুনর্গঠন ও শক্তিশালী করতে সারাদেশ সফর করছেন। তারা তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলছেন।

এরপর কেন্দ্রে প্রতিবেদন দিয়েছেন। এখন সেই প্রতিবেদনের আলোকে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় কমিটি গঠন করা হচ্ছে।

ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি দায়িত্ব নেয়ার পরপরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সহাবস্থান নেয়াটা ছিল অন্যতম প্রধান চ্যালেঞ্জ।

একাধিকবার মার খাওয়ার পর ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন বেশ সক্রিয়। এরমধ্যে

ছাত্রদল সারা দেশের তৃণমূলে সংগঠনকে শক্তিশালী ও সুসংহত করতে অক্লান্ত কাজ করছে। সকল উপজেলা ও ইউনিটে সম্মেলন শেষ করে নতুনভাবে কমিটি ঘোষণা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ঝালকাঠি ছাত্রদলের ৯টি ইউনিটে নতুন কমিটি

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি আগের মতো বিরাট সংখ্যা দিয়ে করার চিন্তা থেকে সরে এসেছে দলের হাইকমান্ড।

বরং ধাপে ধাপে আংশিক তথা স্বল্প সংখ্যক নেতাদের পদায়ন করতে চাইছে দলটি। এতে করে বিরোধের আশঙ্কা থাকবে না বলে তারা মনে করেন।

এদিকে শীর্ষ নেতাদের পেছনে পদের আশায় দিনের পর দিন পার করছেন বহু ছাত্রনেতা।

তারা দ্রুত কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমিটিও পূর্ণাঙ্গ করার দাবি জানান।

ছাত্রদলের তৃণমূলের একাধিক নেতাকর্মী জানান, পদের আশায় যদি দিনের পর দিন ঘুরতে থাকি তবে রাজনীতিটা করবো কখন?

তাদের অভিযোগ বিএনপি ক্ষমতায় নেই এক যুগের বেশি সময় ধরে। এই দুঃসময়ে যারা বিএনপি সহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের রাজনীতি করে তারাই প্রকৃত সৈনিক।

দলকে মাঠ পর্যায়ে শক্তিশালী ও সুসংহত করতে হলে প্রকৃত ত্যাগী ও পরীক্ষিত কর্মীদের দিয়েই কমিটি গঠন করা এবং কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ দেয়া উচিত।

আরও পড়ুন: চুয়াডাঙ্গা ছাত্রদলের ৮টি ইউনিটে নতুন কমিটি

পদবঞ্চিত ও পদপ্রত্যাশী ছাত্রদলের নেতাদের দাবি বিএনপির হাইকমান্ডের উচিত খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ছাত্রদলসহ অন্যান্য অঙ্গসংগঠনের কমিটি পুনর্গঠন করা।

তা না হলে বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সম্পূর্ণ মুক্ত করার আন্দোলন ফলপ্রসূ হবে না।

বর্তমানে কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পেতে ছাত্রদলের অসংখ্য নেতাকর্মী তদবিরে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদল নেতা ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নেতারাও টিএসসিতে এবং নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত হাজিরা দিচ্ছেন।

সংগঠনের সাবেক ও বিএনপির সিনিয়র নেতাদের সাথেও যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন।

ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার ব্যাপারে সবসময় তৃণমূলের পদপ্রত্যাশীদের একটা চাপ রয়েছে। এ নিয়েও কাজ চলছে।

ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ২০০৩ সালে তৃণমূলে প্রতিনিধি সভা করে দলকে সুসংগঠিত করেছিলেন।

এরপর রাজনৈতিক নানা দুর্যোগের কারণে সেটি স্থবির হয় পড়েছিল। আমাদের কমিটি দায়িত্ব গ্রহণের পর তিনি আবারও ছাত্রদলের তৃণমূলকে পুনর্গঠন ও শক্তিশালী করতে নির্দেশ দেন। আমরা তার নির্দেশনা মেনে তৃণমূল থেকেই সংগঠন পুনর্গঠন শুরু করেছি।

জুয়েল জানান, দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে ছাত্রদলের উপজেলা, থানা, পৌর ও কলেজ ইউনিটগুলোতে কমিটি ছিল না। আমরা এসব কমিটি করছি। তৃণমূলের কাজ শেষ হলেই সাংগঠনিক কমিটিগুলো নিয়ে কাজ শুরু হবে বলে জানান তিনি।

ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তানজিল হাসান বলেন, আমাদেরকে বিভিন্ন টিমে বিভিক্ত করে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আমাদের অভিভাবক তারেক রহমান যেভাবে আমাদের নির্দেশনা দিচ্ছেন আমরা সেভাবেই ছাত্রদলকে তৈরি করছি।

তিনি বলেন, আমার টিমের অধীনে ইতোমধ্যে ঢাকা মহানগর পূর্ব ও দক্ষিণে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেয়া হয়েছে। এই দুটি শাখার সব ওয়ার্ড কমিটি প্রকাশ করা হয়েছে।

এছাড়া ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ কলেজগুলোতেও কমিটি করা হয়েছে। এছাড়া যেগুলো বাকীর রয়েছে সেগুলোতেও মতবিনিময় সভা শেষ করা হয়েছে শিগগিরই কমিটি গঠন করা হবে।

রাজশাহী বিভাগীয় টিমের প্রধান ও ছাত্রদলের সহ-সভাপতি সাজিদ হাসান বাবু জানান, ওই বিভাগে ইতোমধ্যে ২শ’ টির মধ্যে ৫৫টি তৃণমূল কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।বাকীগুলোও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি বলেন, ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক তারেক রহমান ছাত্রদলকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখেন, আমাদেরকে যেভাবে নির্দেশনা দিচ্ছেন সেভাবেই আমরা দলকে পুনর্গঠন করছি।

এক্ষেত্রে তিনি আমাদেরকে সর্বোচ্চ স্বাধীনতা দিয়েছেন, যেকোন সমস্যা বা প্রয়োজন হলে আমরা তার সাথে শেয়ার করছি।

এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে যারা আন্দোলন-সংগ্রামে কাজ করেছেন তাদেরকে দিয়েই কমিটি

করা হচ্ছে। যারা অভিমান করে দূরে সরে গিয়েছিলেন তাদেরকেও সক্রিয় করা হচ্ছে।

তৃণমূল কমিটি করে কি পরিবর্তন আসছে জানতে চাইলে বাবু বলেন, তৃণমূল ছাত্রদল

এখন উজ্জীবিত, এখন যাদেরকে নেতৃত্ব দেয়া হচ্ছে তারাই আগামী দিনে গণতন্ত্র

পুনরুদ্ধার আন্দোলন ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে জীবন বাজী রেখে রাজপথে থাকবেন।

সহ-সভাপতি হাফিজুর রহমান হাফিজ বলেন, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান চান ছাত্রদলকে আন্দোলন-সংগ্রামের জন্য তৈরি করতে।

আমাকে ঢাকায় দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, ঢাকা হলো গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্থান।

তাই বিগত দিনে যারা আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। তাদেরকে দিয়েই কমিটি করে ছাত্রদলকে তৈরি করা হচ্ছে।

আমাদের ফেসবুক পেজ লাইক করুন: https://www.facebook.com/Polnewsbd/

Tags

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen + 2 =

Back to top button
Translate »
Close
Close