আওয়ামী লীগলীড

বিএনপি কি বলে ভোট চাইবে প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

১৫ অক্টোবর ২০২০।। ২০.৪৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি নেতারা উপ-নির্বাচনে আগে থেকেই ভরাডুবির আশংকা করছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, জনগণের কাছে তারা কি বলে ভোট চাইবে? তাদের ঝোলায় ইতিবাচক কিছু নেই, তাই বিএনপি বরাবরের মতো মিথ্যা অভিযোগের তীর ছুঁড়তে শুরু করছে।

আরও পড়ুন: বিএনপি আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে নিয়ে সরকারের পতন চায়: ওবায়দুল কাদের

বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ঢাকা-টাঙ্গাইল-হাটিকামরুল-রংপুর মহাসড়কের সিরাজগঞ্জ এবং ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লায় পণ্যবাহী যানবাহনের চালকদের জন্য বহুমুখী সুবিধা সম্পন্ন বিশ্রামাগার নির্মাণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের ক্ষমতার উৎস জনগণ এবং জনআস্থা।

আওয়ামী লীগ জনগণকে কখনো শত্রু মনে করে না, এমনকি বিএনপিকেও শত্রু ভাবে না বরং রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ মনে করেন।

বিএনপির রাজনৈতিক সব কৌশল এখন জনগণের কাছে ভোতা হয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত সরকার গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধাশীল বিধায় যে কোন দলের গণতন্ত্র চর্চা, রীতিনীতিকে সম্মান করে।

সরকার শ্রদ্ধা করে বিরুদ্ধমত আর তাই বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলো প্রতিনিয়ত সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদাগার করে যাচ্ছে, করছে মিথ্যাচার।

অবাধ মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে বলেই বিরোধীদলগুলো সরকারের সমালোচনা করতে পারছে।

আর গণমাধ্যম স্বাধীন বলেই তারা প্রচার ও প্রকাশ করতে পারছে।

কাদের বলেন, দিবারাত্র সমালোচনা করেও বিএনপি নেতারা দেশে গণতন্ত্র নেই বলে যে অভিযোগ করেন, তা তাদের নিজেদের অভিযোগের অসারতা প্রমাণ করে।

অন্ধ সমালোচনা ও মিথ্যাচারের জন্য তাদের কোন নেতাকে শাস্তি দেয়া হয়েছে, তা তারাই বলুক?

শেখ হাসিনার পরমত সহিষ্ণুতা আছে বলেই বিএনপি নেতারা অবিরাম মিথ্যাচারের ঢোল বাজিয়ে যেতে পারছেন।

সরকারের মদদে নাকি সন্ত্রাসী কার্যকলাপ হচ্ছে বিএনপি নেতাদের এই অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির কমিটি গঠনের পর তাদের অফিসে আগুন দিয়েছে কে?

নিজেরা মারামারি করে নিজেদের হাত ভাঙ্গছে, মনোনয়ন নিয়ে চালাচ্ছে সন্ত্রাসী কার্যক্রম,- এসবতো তাদের নিজেদের সৃষ্ট।

সরকার যে কোন সন্ত্রাসী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে অটল জানিয়ে ওবায়দুল কাদের

বলেন, নিজদলের কেউ অপরাধ করলে শান্তি প্রদানের সাহস একমাত্র শেখ হাসিনাই রাখেন।

তিনি বলেন, সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িক উগ্রতা অনিয়ম দুর্নীতি এবং সামাজিক অপরাধ ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে

শেখ হাসিনা সরকারের অবস্থান ইতোমধ্যে জাতির কাছে স্পষ্ট, মদদতো নয়ই।

শেখ হাসিনা অপরাধীদের আতংকে পরিণত হয়েছে, দলীয় পরিচয়ও তাঁর কাছে ঢাল হতে পারেনি বলে জানান কাদের।

আমাদের ফেসবুক পেজ লাইক করুন: https://www.facebook.com/Polnewsbd/

Tags

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − 7 =

Back to top button
Translate »
Close
Close