আরো সংবাদলীড

মা ইলিশ শিকার:গজারিয়ায় ৩ জেলেকে জরিমানা

১৭ অক্টোবর ২০২০।। ০০.০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা নদীতে মা ইলিশ শিকার করায় তিনজন জেলেকে জরিমানা করেছেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ড এর ভ্রাম্যমান ম্যাজিস্ট্রেট।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যা ছয়টা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অভিযান চালায় কোস্টগার্ড পুলিশ।

সারা দিনের অভিযানে অন্তত ৬০ কেজি মা ইলিশ ও জাটকা আটক করে কোস্টগার্ড।

এছাড়াও নৌ পুলিশের একটি দল নিয়মিত মেঘনায় অভিযান পরিচালনা করছে।

সন্ধ্যার অভিযানে নেতৃত্ব দেন গজারিয়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (এসিল্যান্ড) এস এম ইমাম রাজি টুলু।

তার সাথে ছিলেন গজারিয়া উপজেলার মৎস্য অফিসার আসলাম হোসেন ও কোস্টগার্ডের গজারিয়া লঞ্চঘাট কন্টিনজেন্ট কমান্ডিং অফিসার (সিসিও) খন্দকার মনিরুজ্জামান জামান।

আরো পড়ুন: ‘মাছের রাজা ইলিশ, দেশের রাজা পুলিশ’

শুক্রবার সকালে মেঘনার বক চরে অভিযান চালিয়ে ৩০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ১০ কেজি মা ইলিশ আটক করে কোস্টগার্ড।

এসময় স্থানীয় জেলেদের সাথে কোস্টগার্ডের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে সেখান থেকে কারেন্ট জাল ও ডিম সহ মা ইলিশ উদ্ধার করা হয়।

এরপর সন্ধ্যা ছয়টায় আবারো ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অভিযানে যায় কোস্টগার্ড। পরে মেঘনার ভেতরে ধাওয়া দিয়ে তিনজন জেলেকে নৌকা সহ আটক করে।

আটককৃতরা হলেন- মিয়া খান, ইসমাইল ও সাব্বির। পরে ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এসময় স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তিও উপস্থিত ছিলেন। যারা জেলেদেরকে ছাড়িয়ে নেয়ার ব্যাপারে প্রশাসনের সাথে কথা বলেন।

এছাড়া মেঘনার ভেতর থেকে প্রায় ৭০ হাজার সহ মোট ১ লাখ মিটার কারেন্ট জাল উদ্ধার করে কোস্টগার্ড। কারেন্টজালগুলো পুড়িয়ে ফেলা হয়।

গজারিয়া উপজেলার এসিল্যান্ড টুটুল জানান, বর্তমানে ইলিশের প্রজনন মৌসুম শুরু হয়েছে। এখন মেঘনার মোহনায় ডিম ছাড়তে মা ইলিশ চলে আসে।

ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকারী নির্দেশ মোতাবেক ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মা ইলিশ শিকার সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

তবুও সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যারা ইলিশ শিকার করছে তাদেরকে ধরতে প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মৎস্য অফিসার আসলাম জানান, আমরা মা ইলিশ রক্ষার জন্য জেলেদেরকে নানাভাবে সতর্ক করেছি। অর্থাৎ ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ইলিশ শিকার বন্ধে সরকারি নিষেধাজ্ঞা আছে।

কিন্তু সরকারি আইন অমান্য করে অনেক জেলে ইলিশ শিকার করছেন। যা বেআইনী। তাদেরকে ধরে আইনের আওতায় আনতে প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে।

কোস্টগার্ডের গজারিয়া কন্টিনজেন্ট কমানান্ডার মনির জানান, এখন মা ইলিশ ডিম ছাড়তে মেঘনার মোহনায় চলে আসে।

ইলিশের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় ইলিশ শিকার বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার।

এরপরও যেসব জেলে আইন অমান্য করে কারেন্ট জাল দিয়ে অবাধে মা ইলিশ শিকার করছে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে কয়েকদফা অভিযানে প্রায় দুই লাখ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করা হয়েছে। যা পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।

এছাড়া মা ইলিশও জেলেদের থেকে উদ্ধার করা হয়। যা স্থানীয় এতিমখানায় ও গরিব মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

ফেসবুক পেজ লাইক করুন: https://www.facebook.com/Polnewsbd/

Tags

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + eight =

Back to top button
Translate »
Close
Close